1485314048বাংলা সাহিত্যের অমর প্রতিভা মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের আজ ১৯৩তম জন্ম বার্ষিকী। এ উপলক্ষে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে কবির জন্মস্থান সাগরদাঁড়িতে গত ২১ জানুয়ারি থেকে চলছে সপ্তাহব্যাপী মধুমেলা।
যশোরের কেশবপুর উপজেলার সাগরদাঁড়ি গ্রামে মধুসূদন ১৮২৪ সালের ২৫ জানুয়ারি জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা জমিদার রাজনারায়ণ দত্ত ও মাতা জা?হ্নবী দেবী। মধুসূদন বাল্যকালে ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্যের প্রতি আকৃষ্ট হন। যার কারণে ইংরেজি ভাষায় সাহিত্য সাধনাকে ব্রত হিসেবে গ্রহণ করেন। ১৮৪৯ সালে ‘দ্য ক্যাপটিভ লেডি’ ও ‘ভিশনস অব দ্য পাস্ট’ নামে তার দুটি ইংরেজি কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়।  তিনি নাট্যকার হিসেবেই বাংলা সাহিত্যে প্রবেশ করেন। রামনারায়ণ তর্করত্নের নাটক রত্নাবলী’র ইংরেজি অনুবাদ করতে গিয়ে তিনি বাংলা নাট্যসাহিত্যে উপযুক্ত নাটকের অভাব অনুভব করেন। তাই ১৮৫৯ সালে তিনি রচনা করেন নাটক ‘শর্মিষ্ঠা’।
১৮৬০ সালে তিনি রচনা করেন দুটি প্রহসন— ‘একেই কি বলে সভ্যতা’ ও বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রোঁ এবং পূর্ণাঙ্গ ‘পদ্মাবতী’ নাটক। এই ‘পদ্মাবতী’ নাটকেই তিনি প্রথম অমিত্রাক্ষর ছন্দ ব্যবহার করেন। ১৮৬০ সালে তিনি অমিত্রাক্ষর ছন্দে লেখেন ‘তিলোত্তমাসম্ভব কাব্য’। এরপর একে একে রচিত হয়— ‘মেঘনাদবধ’ মহাকাব্য, ব্রজঙ্গনা কাব্য, কৃষ্ণকুমারী নাটক, বীরাঙ্গনা কাব্য, ‘চতুর্দশপদী কবিতা’। তার ‘মেঘনাদবধ’ কাব্য বাংলা সাহিত্যের প্রথম মহাকাব্য হিসেবে স্বীকৃত।
SOURCEittefaq
SHARE

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY