পোশাক-খাতে-প্রযুক্তর-ব্যবহার-1পোশাক খাতে ২০২১ সালের মধ্যে রপ্তানি আয় ৫০ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করার যে পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে তা অর্জনের লক্ষ্যে প্রযুক্তিনির্ভর হতে হবে। হোটেল সোনারগাঁওয়ে বিজটেক বিটুবি কনফারেন্সে বক্তারা এই অভিমত ব্যক্ত করেন।

এ্যাপারেল প্রতিবেদক: পোশাক খাতে ২০২১ সালের মধ্যে রপ্তানি আয় ৫০ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করার যে পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে তা অর্জনের লক্ষ্যে প্রযুক্তিনির্ভর হতে হবে। হোটেল সোনারগাঁওয়ে বিজটেক বিটুবি কনফারেন্সে বক্তারা এই অভিমত ব্যক্ত করেন।

তৈরি পোশাক খাতের ওপর ইন্ডাস্ট্রি পেপার উপস্থাপনকালে বেসিসের সহ-সভাপতি এম রাশিদুল হাসান বলেন, বাংলাদেশের রফতানি আয়ের প্রধান খাত তৈরি পোশাক। এই খাতে রফতানিতে বিশ্বের আমাদের অবস্থান দ্বিতীয়। ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরে বাংলাদেশের রফতানি আয় ছিল ৩২ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলার। এর মধ্যে পোশাক খাত থেকেই আয় হয়েছে ২৫ দশমিক ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

তথ্যপ্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে পারলে এ খাতে আয় আরো বহু গুণ বাড়ানো সম্ভব।

দেশের সফটওয়্যার ও তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর সেবার চাহিদা পূরণের যথেষ্ট সক্ষমতা আছে আমাদের কোম্পানিগুলোর। বাংলাদেশি কোম্পানিগুলোর তৈরি সফটওয়্যার বিভিন্ন দেশে ব্যবহƒত হচ্ছে। এগুলো আন্তর্জাতিক মানের।

কনফারেন্সে ব্যাংকিং ও ফিন্যান্স, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও তৈরি পোশাক খাতের ওপর ইন্ডাস্ট্রি পেপার উপস্থাপন, আলাদা চারটি প্যানেল আলোচনা, প্রদর্শনী এবং বিটুবি মিটিং হয়।

SOURCEtheapparelnews
SHARE

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY