a50c542347fd9c9b0820cda8ab7257d2-hot-tea-month-webশীত যাই যাই করেও যেন যাচ্ছে না। এ সময় সর্দি-কাশির প্রকোপ বেশি হয়ে থাকে। এ সমস্যা থেকে রেহাই পেতে কিছু বিশেষ খাবার বেশ সহায়ক। এগুলো আপনার সুরক্ষা দিতে পারে। জেনে নিন এ বিষয়ে কয়েকটি তথ্য:
* হালকা গরম পানিতে মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে পান করলে ঠান্ডা-সর্দি দূর হয়। লেবুর ভিটামিন সি ও মধুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট মিলে এই সুরক্ষা দেয়।
* ধুলাবালি ও ঠান্ডায় শ্বাসনালি সংকুচিত হয়। ফলে শ্বাসকষ্ট হয়। গরম আদা-চা বা লেবু-চা এই কষ্ট দূর করে এবং জমে থাকা কফকেও তরল করে।
* চায়ের সঙ্গে তুলসীপাতা জ্বাল দিয়ে খাওয়া যায়। আবার প্রতিদিন দু-তিনটা এমনি পাতা ধুয়েও চিবিয়ে খাওয়া যায়। এতে বিটা ক্যারোটিন ও ইউনিজল আছে, যা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও ব্যাকটেরিয়ারোধী। গলা খুস খুস করলেও তুলসীপাতা উপকারী।
* সরিষার তেল, পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচের ভর্তা কফ তরল করে। এ ছাড়া সরিষাভর্তা, সরিষাশাক ও কালিজিরার ভর্তা সর্দি-কাশি কমায়।

* যাঁরা শীতে কষ্ট পান ও যাঁদের সহজে ঠান্ডা লেগে যায়, তাদের জন্য একটি পরামর্শ—খাওয়ার পানি দু-তিন কোয়া রসুন মিশিয়ে জ্বাল দিয়ে পান করুন। এটি শরীরকে গরম রাখে এবং ঠান্ডা থেকে সুরক্ষা দেয়।

* শীতে গরম স্যুপ, গরম চা ঠান্ডা দূর করতে সাহায্য করে। তবে প্রচুর পানিও পান করতে হবে। কেননা সর্দি-কাশি ও জ্বরে শরীর দ্রুত পানিশূন্য হয়ে পড়ে।

SOURCEprothom-alo
SHARE

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY